কোন কোন খাবারে অ্যালার্জি ও তার প্রতিকার জেনে নিন

প্রজন্ম ডেস্ক

অ্যালার্জি বাংলাদেশের লাখ লাখ মানুষের কাছে এক অসহনীয় ব্যাধি ।অ্যালার্জিতে হাঁচি থেকে শুরু করে আরো নানান জটিল রোগ ও হতে পারে, এমন কি শ্বা’সক’ষ্ট পর্যন্ত হতে পারে ।

সাধারণত খাবার এর কারনেই আমাদের অ্যালার্জিটা বেড়ে যায় । এক এক জনের এক এক খাবার থেকে অ্যালার্জি হয়ে থাকে যেমন , দুধ, বেগুন, গরুর গোস্ত, চিংড়ি মাছ, ইলিশ মাছ ইত্যাদি এগুলো খেলেই শরীরে চুলকানি শুরু হয়ে যায় । আমাদের প্রথম এ জানতে হবে অ্যালার্জি কী’ ?

অ্যালার্জিঃ আমাদের শরীর এ সব সময় ক্ষতিকর বস্তুকে (পরজীবী, ছএাক, ভাই’রাস, এবং ব্যাকটেরিয়া )প্রতিরোধের মাধ্যমে রোগ প্রতিরোধের চেষ্টা করে থাকে । এই রোগ প্রতিরোধ এর চেষ্টা কে প্রতিরোধ প্রক্রিয়া বা ইমিউন বলে । কিন্তু কখনো কখনো আমাদের শরীর ক্ষতিকর নয় এমন অনেক ধরনের বস্তু কে ক্ষতিকর ভেবে প্রতিরোধের চেষ্টা করে । সাধারণত ক্ষতিকর নয় এমন সব বস্তুর প্রতি এই অস্বাভাবিক প্রতিক্রিয়াকে অ্যালার্জি বলে ।
যে সব খাবার থেকে অ্যালার্জি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে তার বিবরণ নিচে দেওয়া হলোঃ

ডিমঃ ডিম খেলে অনেকেরই অ্যালার্জি দেখা দেয় । ডিমে আমিষ এর অংশ খেলে অনেকের প্রতিক্রিয়া হয় যেমন, চোখ লাল হতে পারে , চোখ হালকা ফুলে যেতে পারে ,এবং চুলকানি শুরু হতে পারে । খুব ছোট শি’শুদের ডিম না খাওনোই ভালো ।

গরুর মাংসঃগরুর মাংস খেলে অামাদের সবারই অ্যালার্জি এর সমস্যা হয়ে থাকে । গরুর মাংস খাওয়ার পরেই কারো কারো শরীররে ফুসকুরি ওঠা,বমি হওয়া,নাক দিয়ে পানি পড়া,মা’থা ব্যাথা,হাচি হওয়া,শ্বা’সক’ষ্ট-অ্যাজমা,অ্যালার্জি এর কারনে নিশ্বা’স বন্ধ হয়ে যাওয়া,যাকে বলা হয় অ্যানাফেলাক্সিস ।

বাদামঃ অনেকেরই বাদাম খেলে শরীর চুলকায় । বাদাম আমিষজাতীয় খাবার । তাই ইমিউন সিস্টেমের ওপর প্রভাব ফেলে বেশি ।


মাছঃ সামুদ্রিক মাছে প্রায় সবারই অ্যালার্জি আছে , যেমন, ইলিশ, চিংড়ি ও স্কুইড ইত্যাদিতে অ্যালার্জি বেশি হয়ে থাকে । তাই বলে সবারই চিংড়ি বা ইলিশ খাওয়া নিষেধ তা কিন্তু নয়, যাদের এসব খাবারে প্রতিক্রিয়া হয় শুধু তাঁরাই খাওয়া বাদ দিবেন ।

শস্যঃ যব, ভুট্টা,ময়দা ইত্যাদি খাবার এ গুলটেন থাকে, আর অনেকেরই গুলটেনে অ্যালার্জি থাকে । তাছাড়া সিলিয়াক ডিজিজে আক্রান্ত রোগীরা গুলটেন খেতে পারেন না ।

দুধঃ বিশেষ করে শি’শুদের দুধে অ্যলার্জি বেশি প্রভাব ফেলে । একে বলে ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স । দুধে যে ল্যাকটোজ নামের উপাদান থাকে তা হ’জম করার উৎসেচক সমস্যা থাকে বলে এমন হয় ।

কী’ভাবে বুঝবেন যে খাবারে অ্যালার্জি আছে ?

যদি কোন খাবারে আপনার ত্বক,মুখও জিবে চুলকানি, র‌্যাশ, নাক দিয়ে পানি পড়া, চোখ লালা হওয়া, পেট ব্যাথা, ডায়রিয়া এবং শুকনো কাশি ইত্যাদি অ’সুবিধা দেখা দেয় তাহলে বুঝবেন ঐখাবারে আপনার অ্যালার্জি আছে ।

করনীয়ঃ সহ’জ উপায় হলো ঐ খাবারটি এড়িয়ে চলুন । সমস্যা দেখা দিলে অ্যান্টিহিস্টামিন খেয়ে নিতে পারেন ।আর তানা হলে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়াটাই ভালো ।

মন্তব্য