তারেক-নুর কথোপকথন নিয়ে দেশজুড়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

প্রজন্ম ডেস্ক

সম্প্রতি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সন তারেক রহমান,নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না,

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আসিফ নজরুল ও ডাকসু ভিপি নুরের নামে কিছু আইডির সমন্বয়ে গঠিত ‘Team4’ নামক একটি ‘হোয়াটসঅ্যাপ’ চ্যাটিং গ্রুপের কথোপকথনের কিছু স্ক্রিনশট দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ায় গোটা দেশ জুড়ে তুমুল আলোচনা-সমালোচনার ঝড় তুলেছে। প্রকৃত ঘটনা জানতে গোটা দেশবাসীর মনে চরম আগ্রহ,উৎকণ্ঠা ও টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে।

আসন্ন ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন উপলক্ষে চলমান কার্যক্রমের সকল উত্তেজনা ছাপিয়ে রাজধানীসহ দেশের জেলা,উপজেলা শহর এমনকি গ্রামগঞ্জের চায়ের দোকান,বাজার, অফিস আদালত,রাজনৈতিক অঙ্গনসহ গোটা দেশে বিষয়টি ‘টক অফ দ্যা কান্ট্রি’তে পরিণত হয়েছে ।

উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে পুরোপুরি শান্ত দেশটিকে একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিতে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপটিতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সন তারেক রহমান, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আসিফ নজরুল ও ডাকসু ভিপি নুরুল হকের সমম্বয়ে একটি প্রভাবশালী কুচক্রীমহল গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে বলে প্রমাণস্বরূপ দাবি করা হচ্ছে।

এদিকে,দেশজুড়ে টানটান উত্তেজনা সৃষ্টিকারী ঘটনাটিকে নিয়ে আগ্রহের কমতি নেই কারোই। তবে এপর্যন্ত ভাইরাল হওয়া ওই স্ক্রিনশটগুলোতে ‘team4’ নামে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট গ্রুপটিতে ইরেজীতে দেশের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে ষড়যন্ত্রমুলক কার্যকলাপের প্রমানের অংশ হিসেবে ‘team4’ লেখাটির নিচে আসিফ, মান্না ও তারেক নামক আইডি থেকে থেকে ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুরের সাথে কথোপকথন হয়েছে বলেও দাবি করা হচ্ছে।

অপরদিকে,ভাইরাল হওয়া স্ক্রিনশট গুলোতে দৃশ্যমান বার্তা আদান প্রদান আসলেই তাদের কথোপকথন কিনা সেটি নিশ্চিত হওয়া যায়নি উল্লেখ করে এটিকে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে একটি বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও জঘণ্য অপপ্রচারও দাবি করছে দেশের বিশেস একটি মহল।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘হোয়াটসঅ্যাপ’ চ্যাট গ্রুপটির কথোপকথনের ভাইরাল হওয়া ওই স্ক্রিনশটগুলো পর্যালোচনা করে দেখা গেছে- তারেক নামের আইডি থেকে লেখা হয়েছে, ‘নুর আন্দোলন তো জমলো না। ’উত্তরে নুর নামের আইডি থেকে লেখা হয়েছে, ‘স্যার সব চেষ্টা তো হলো।’

তারপর তারেক নামের আইডি থেকে লেখা হয়েছে, ‘আরও প্ল্যান করে করা উচিত সব। আমি আগেও বলেছি, লাশের বিকল্প নাই। যেকোনো উপায়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে উত্তপ্ত করতে হবে। সকল নির্দেশনাই দেয়া হয়েছিল। ’এরপর আসিফ নামের আইডি থেকে লেখা হয়, ‘কামাল স্যারের সাথে তো বসা যায়। সেটির ’উত্তরে তারেক নামের আইডি থেকে লেখা হয়, ‘নো, ভ্যালুলেস।’

পরে মান্না নামের আইডি থেকে লেখা হয়, বাম ছাত্রসংগঠনগুলোর কী অবস্থা নুর? নুর নামের আইডি থেকে লেখা হয়, আমাদের সাথে আছে স্যার। মান্না নামের আইডি থেকে নির্দেশনা আসে, ‘কাজে লাগাও।’ নুর নামের আইডি থেকে তখন ছুরি হাতে শিবির নেতা বলে পরিচিত যুবক সালেহ উদ্দিন সিফাতের ছবি দেয়া হয়।’

ছবি দেখে মান্না নামের আইডি থেকে লেখা হয়, ‘ওদের কাজই এগুলো করা। এখন সত্য কিছু দিলেও পাবলিক আর বিশ্বাস করে না ওদের।’ এরপর নুর নামের আইডি থেকে লেখা হয়, ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মামুনদের ধরা না হলে আন্দোলন জমতো। আর ফারাবিও সুস্থ হয়ে গেল। ’তখন তারেক নামের আইডি থেকে লেখা হয়, ‘টক টু নিউ জেসিডি কমিটি, ডু সামথিং ইন প্রোপার ওয়ে।

মন্তব্য