চা দোকানির বাক প্রতিবন্ধী মেয়ে পিইসিতে পেল জিপিএ-৫

প্রজন্ম ডেস্ক

 টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার ১০নং গোড়াই ইউনিয়নের ধেরুয়া গ্রামের দিনমজুর চায়ের দোকানদার মো. লাভলু মিয়ার মেয়ে বাক প্রতিবন্ধী লাবন্য আক্তার।

বাক প্রতিবন্ধী থাকার পরও ১২ বছরের লাবন্য আক্তার প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষা দিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে। শুধু পরিবার নয়, বাইমাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও লাবন্য আক্তারকে নিয়ে গর্বিত।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, জন্মের পর থেকেই লাবন্য আক্তার ও তার ছোট বোন লামিয়া আক্তার বাক প্রতিবন্ধী। দুই বোন শুধু লেখা পড়া নয় খেলাধুলাও পারদর্শী। লাবন্য আক্তারের উন্নত চিকিৎসা ও আর এক বোনের পড়াশোনার খরচ চালিয়ে যেতে হিমশিম খাচ্ছে তার হতদরিদ্র বাবা। তবুও মেয়েদের উচ্চশিক্ষিত করতে চান মা রুমি বেগম।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক মো. জাকির হোসেন জানান, লাবন্য আক্তার অনেক মেধাবী ছাত্রী। সে উন্নত লেখাপড়ার সুযোগ পেলে অনেক দূর যেতে পারবে। লাবন্য আক্তার আমাদের গর্ব। আমরা আশা করি, সামনের দিনগুলো তার আরও ভালোভাবে কাটবে এবং ভবিষ্যত উজ্জ্বল কামনা করি।

মন্তব্য