সোলাইমানির মরদেহ আহভাজে, রাজপথে শোকস্তব্ধ মানুষের ঢল

প্রজন্ম ডেস্ক

জেনারেল কাশেম সোলাইমানির মরদেহ ইরানে পৌঁছেছে। আজ রোববার ভোররাতে ইরাকের রাজধানী বাগদাদ থেকে ইরানের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর আহভাজে পৌঁছায় তাঁর মরদেহ। সেখানে তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে মানুষের ঢল নামে।

ইরানের বার্তা সংস্থা ইসনা জানায়, জেনারেল কাশেম সোলাইমানির মরদেহ আহভাজ শহরে আনা হবে—এই খবরে সেখানে আগেই হাজারো মানুষ জড়ো হন। তাঁদের হতে ছিল ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডের অভিজাত কুদস ফোর্সের কমান্ডার মেজর জেনারেল কাশেম সোলাইমানির ছবি। এ সময় তাঁরা বুক চাপড়ে মাতম করেন। ‘আমেরিকা নিপাত যাক’ স্লোগান দেন।

এদিকে অনেকের হাতে নিহত সোলাইমারির পোট্রেট ছবি। মানুষে মানুষে এতটা গাদাগাদি যে তাদের তিল ধারণের ঠাঁই হচ্ছিল না। এ খবর দিয়েছে ইরানের অনলাইন তেহরান টাইমস।

এতে বলা হয়, আজ রোববার সোলাইমানের মৃতদেহ ইরানে গিয়ে পৌঁছে। সেখান থেকে মৃতদেহ নিয়ে যাওয়া হয় আহভাজে।

শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য সোমবার (৬ জানুয়ারি) সোলাইমানির কফিন নেওয়া হবে ইরানের রাজধানী তেহরানে। মঙ্গলবার দক্ষিণপূর্বের কারমানে নিজ শহরে কাসেম সোলাইমানিকে সমাহিত করা হতে পারে।

মার্কিন মিসাইল হামলায় সোলাইমানিকে হত্যার দুদিন পর, এখনো ক্ষোভ বিরাজ করছে ইরানিদের মধ্যে। ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, নারী ও পুরুষরা ধর্মীয় স্লোগান তুলতে তুলতে শোকপ্রকাশ করছেন। ইরানের টিভি-রেডিও ও অন্যান্য সংবাদমাধ্যম ক্ষমতাধর এই সামরিক কর্মকর্তাকে ‘শহীদ’ উপাধি দিচ্ছি।

মন্তব্য