ছাত্রীদের সঙ্গে শিক্ষিকার এ কেমন আচরণ!

প্রজন্ম ডেস্ক

তিন ও ছয় বছরের দুই ছাত্রী পড়তে গিয়েছিলেন ১৯ বছরের এক শিক্ষিকার কাছে। তবে ওই দুই ছাত্রী শিক্ষিকার কাছে যে ধরনের আচরণ পেয়েছে, তা রীতিমতো ভয়ঙ্কর ও পাশবিক। একাডেমিক শিক্ষা দেয়ার পরিবর্তে তাদের সঙ্গে নোংরা যৌন আচরণ করেছেন শিক্ষিকা।

ছাত্রীদের বিবস্ত্র করে তাদের সঙ্গে অমানবিক আচরণের ভিডিও বয়ফ্রেন্ডকে পাঠানোর অপরাধে শিক্ষিকা ও তার বয়ফ্রেন্ডকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনা ঘটেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশে।

তাদের বিরুদ্ধে পকসো (প্রটেকশন অব চিলড্রেন ফ্রম সেক্সুয়াল অফেন্সেস) আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সম্প্রতি ওই রাজ্যে এই ঘটনা ঘটে।

সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ১৯ বছরের ওই শিক্ষিকার বাসায় পড়তে গিয়েছিল ছয় বছরের এক শিশু ছাত্রী ও তার তিন বছরের বোন। সেখানে শিক্ষিকা তাদেরকে বিবস্ত্র করে যৌনাঙ্গে পেন্সিল ঢুকিয়ে দেন বলে অভিযোগ। সেই ঘটনার ভিডিও করেন শিক্ষিকা নিজেই। পরে সেই ভিডিও পাঠিয়ে দেন নিজের বয়ফ্রেন্ডকে।

টিউশন থেকে ফিরে যৌনাঙ্গে যন্ত্রণা হচ্ছে বলে বাসায় জানায় তিন বছরের শিশুটি। এর কারণে জানতে চাইলে সব কিছু খুলে বলে তারা। এর পরই শিক্ষিকার বাসায় যান ভুক্তভোগীর শিশুর পরিবারের সদস্যরা। এ সময় অভিযুক্ত শিক্ষিকাকে মারধর করে তুলে দেন পুলিশের হাতে।

ছাত্রীদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, শিক্ষিকা তাদের যৌনাঙ্গে পেন্সিল ঢুকিয়ে দেন। এতে তারা চিৎকার শুরু করে দিলে আবার পড়তে বলেন তিনি। ওই শিক্ষিকাকে গ্রেফতার করে তার বিরুদ্ধে পকসো ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ওই শিক্ষিকার বয়ফ্রেন্ডকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

মন্তব্য