সুন্দরবন উপকূলে ৩০ কোটি টাকার ভারতীয় শাড়ি-কাপড় জব্দ, ১৮ জন আটক

প্রজন্ম ডেস্ক

বঙ্গোপসাগরে সুন্দরবন উপকূলে ফেয়ারওয়ে বয় সংলগ্ন এলাকা থেকে মংলা কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের টহলরত জাহাজ বিসিজিএস সোনার বাংলা অভিযান চালিলে চোরচালানীদের কাছ থেকে প্রায় ৩০ কোটি টাকা মূল্যের অবৈধ শাড়ি, লেহেঙ্গা, থ্রিপিচ, শাল চাদর ও বিদেশী মদ উদ্ধার করেছে।

এসময়ে একটি ট্রলারসহ ১৮ চোরাচালানীদের আটক করেছে কোস্টগার্ড সদস্যরা। উদ্ধার করা এসব অবৈধ পন্য ও ট্রলারসহ আটক চোরাচালানীদের নামে মামলা দিয়ে মংলা থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

মংলা কোস্টগার্ড পশ্চিম জোন সদর দপ্তরের অপারেশান কর্মকর্তা লে. ইমতিয়াজ আলম জানান, বঙ্গোপসাগরে সুন্দরবন উপকূলে ফেয়ারওয়ে বয় সংলগ্ন এলাকায় বিসিজিএস সোনার বাংলা নিয়মিত টহল দেয়ার সময় সন্দেহ ভাজন একটি ট্রলার কে তল্লাশি করে। ওই সময় ট্রলার থেকে প্রায় ৩০ কোটি টাকা মূল্যের ২২ হাজার ৬৮৩ পিস উন্নতমানের বিদেশী শাড়ি, ১২৪ পিস লেহেঙ্গা, ১২৭১ পিস থ্রিপিচ, ৬ হাজার ৪৫ পিস শাল চাদর এবং ২০ বোতল বিদেশী মদ দেখতে পায় কোস্টগার্ড সদস্যরা।

ভারত থেকে আসা ওইসব পন্যের কোন কাগজ পত্র দেখাতে না পারায় ট্রলারসহ সকল মালামাল জব্দ করা হয়। এসময় আটক করা হয় ১৮ জন পাচারকারিদের।

কোস্টগার্ডের দাবি, একটি চোরাচালানী চক্র নিজ স্বার্থ হাসিলের জন্য সরকারী শুল্ক ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে বিদেশী শাড়ি, লেহেঙ্গা, থ্রিপিচ, শাল চাদর ও বিদেশী মদ সমুদ্র পথে আমদানি করছিলো। চোরাচালান রোধে বাগেরহাট, খুলনা ও সাতক্ষীরা মংলা এলাকায় কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের টহল জোরদার করা হয়েছে হয়েছে।

মংলা থানার অফিসার ইনচার্জ ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, কোস্টগার্ড পশ্চিম জোন আটক করা এসব অবৈধ পন্য ও ট্রলার জব্দ দেখানো হয়েছে এবং আটক চোরাচালানীদের নামে মামলা দায়ের শেষে সোমবার ১৮ জনকে বাগেরহাট আদালতে প্রেরন করা হয়েছে। আদালত তাদের জেলহাজতে পাঠিয়েছেন।

মন্তব্য